অলিম্পিকেরই মতো রঙিন আলো ও আতসবাজির ভেলায় ভেসে টোকিওয় শুরু হল প্যারালিম্পিক। করোনা ভাইরাসের আবহে বর্নাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নাচ, গানের মুখরিত হল দর্শকশূন্য স্টেডিয়াম। নিজেদের কৃষ্টি ও সংস্কৃতি দিয়ে বিভিন্ন দেশের প্যারা-অ্যাথলিটদের বরণ করে নিল জাপান। যাঁদের আবেগপূর্ণ ফ্ল্যাগ মার্চে সম্বৃদ্ধ হল স্টেডিয়াম। চ্যাম্পিয়নদের প্রত্যক্ষ করল বিশ্ব। প্রত্যাশা মতোই ভারতের পতাকা হাতে এ যাত্রায় অংশ নেন প্যারা-জ্যাভলিন থ্রোয়ার টেক চাঁদ। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে প্রতিযোগিতা। যার সূচনা উপলক্ষ্যে টোকিওর অলিম্পিক স্টেডিয়ামে হাজির ছিলেন জাপানের রাজা নারুহিতো ও প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা। সংহতি ও শান্তির বার্তা বহন করল আফগানিস্তানের পতাকা।

আলোর রোশনাইয়ে উদ্বোধন
অলিম্পিক শেষ হয়েছে এক মাসও হয়নি। তারই রেশ নিয়ে রঙিন আলো ও আতসবাজির ভেলায় ভেসে টোকিওয় শুরু হল প্যারালিম্পিক। করোনা ভাইরাসের আবহে বর্নাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নাচ, গানের মুখরিত হল দর্শকশূন্য স্টেডিয়াম। নিজেদের কৃষ্টি ও সংস্কৃতি দিয়ে বিভিন্ন দেশের প্যারা-অ্যাথলিটদের বরণ করে নিল জাপান। যাঁদের আবেগপূর্ণ ফ্ল্যাগ মার্চে সম্বৃদ্ধ হল স্টেডিয়াম। চ্যাম্পিয়নদের প্রত্যক্ষ করল বিশ্ব। ভিআইপি বক্সে বসে অনুষ্ঠান উপভোগ করার পাশাপাশি সব দেশের প্যার-অ্যাথলিটদের হাত নাড়িয়ে অভিবাদন জানান জাপানের রাজা নারুহিতো ও প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা। অনুষ্ঠানের শেষ লগ্নে রীতি মেনে মঞ্চে শপথবাক্য পাঠ করা হয়। মঞ্চে তৈরি করা হল প্যারালিম্পিকের প্রতীক আজিতো